ঘূর্ণিঝড় ‘মিগজাউম’ আঘাত হানতে পারে অন্ধ্র প্রদেশে

ঘূর্ণিঝড় ‘মিগজাউম’ আঘাত হানতে পারে অন্ধ্র প্রদেশে

আগের সংবাদ

শাহরুখের ‘জওয়ান’-এর রেকর্ড ভাঙল রণবীরের অ্যানিম্যাল

পরের সংবাদ

ইন্দোনেশিয়ায় অগ্নুৎপাতে ১১ পর্বতারোহী নিহত

প্রকাশিত: ডিসেম্বর ৪, ২০২৩ , ১:১৯ অপরাহ্ণ আপডেট: ডিসেম্বর ৪, ২০২৩ , ১:১৯ অপরাহ্ণ
ইন্দোনেশিয়ায় অগ্নুৎপাতে ১১ পর্বতারোহী নিহত

ইন্দোনেশিয়ার মাউন্ট মেরাপি আগ্নেয়গিরির অগ্ন্যুৎপাতে ১১ জন পর্বতারোহী নিহত হয়েছেন। রোববার (৩ ডিসেম্বর) আগ্নেয়গিরিটিতে আবারও অগ্নুৎপাত শুরু হয়।

অগ্নুৎপাতের পরে ১১ পর্বতারোহীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়।এসময় আরও ৩ জনকে জীবিত উদ্ধার করা হয়। খবর বিবিসির।

এখনও ছোট ছোট অগ্নুৎপাতের কারণে নিখোঁজদের উদ্ধারে অভিযান আপাদত স্থগিত রাখা হয়েছে।

অগ্ন্যুৎপাতের সময় এই এলাকাতে প্রায় ৭৫ জন পর্বতারোহী ছিলেন। তাদের বেশিরভাগকে নিরাপদ আশ্রয়ে সরিয়ে নেয়া হয়েছে। অগ্ন্যুৎপাতের ফলে ৩ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে ছাই ছড়িয়ে পড়েছে।

কর্তৃপক্ষ দুর্যোগপূর্ণ এলাকায় দ্বিতীয় সর্বোচ্চ সতর্কতা জারির পর বাসিন্দাদের ৩ কিলোমিটারের মধ্যে যেতে নিষেধ করেছে।

পাদাং সার্চ অ্যান্ড রেসকিউ এজেন্সির প্রধান আবদুল মালিক বলেছেন, জীবিত উদ্ধার হওয়া ৩ জনক উদ্ধারের পর দেখা গেছে তাদের শরীরের কিছু অংশ পুড়ে গেছে।

সোমবার সরিয়ে নেয়াদের মধ্যে অনেকেই দগ্ধ হয়েছেন। ২ হাজার ৮৯১ মিটার (৯ হাজার ৪৮৫ ফুট) উচ্চতার মাউন্ট মেরাপি ইন্দোনেশিয়ার পশ্চিমে সুমাত্রা দ্বীপে অবস্থিত।

মাউন্ট মেরাপি আগ্নেয়গিরির অবস্থান ইন্দোনেশিয়ার ইয়োগাকার্তার প্রদেশের রাজধানী ইয়োগাকার্তার ২৮ কিলোমিটার উত্তরে।

এর আগে, ২০১০ সালে মেরাপি আগ্নেয়গিরিতে অগ্ন্যুৎপাতের ঘটনায় অন্তত ৩০০ জনের প্রাণহানি ঘটেছিল। ওই সময় দেশটির কর্তৃপক্ষ মেরাপির আশপাশের এলাকা থেকে প্রায় ২ লাখ ৮০ হাজার বাসিন্দাকে সরিয়ে নিতে বাধ্য হয়।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়