বাণিজ্য মন্ত্রণালয়কে চিঠি ওয়াশিংটন দূতাবাসের

আগের সংবাদ

গাজীপুর-৫ আসনে প্রার্থী হচ্ছেন ট্রান্সজেন্ডার উর্মি

পরের সংবাদ

‘জীবন বাজি’ রেখে হরতাল পালনের ডাক বিএনপির

প্রকাশিত: নভেম্বর ২৯, ২০২৩ , ৭:১৪ অপরাহ্ণ আপডেট: নভেম্বর ২৯, ২০২৩ , ৭:১৯ অপরাহ্ণ

‘জীবন বাজি’ রেখে বৃহস্পতিবার সকাল-সন্ধ্যা হরতাল পালনের ডাক দিয়েছে বিএনপি। বুধবার (২৯ নভেম্বর) বিকালে এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, আগামীকাল সকাল-সন্ধ্যা হরতাল কর্মসূচি। বিএনপিসহ সমমনা দলগুলো দুর্জয় গতিতে জীবন বাজি রেখে শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিগুলো করছে। বৃহস্পতিবারও নেতা-কর্মীরা জীবন বাজি রেখে, সর্বান্তকরণে সার্বিকভাবে সর্বাত্মক এই হরতাল কর্মসূচি পালন করবে।

বিএনপির এই সিনিয়র নেতা বলেন, বিএনপি ও সমমনা দলগুলোর চলমান কর্মসূচি সংলাপহীন সত্যের অবমাননার প্রতিবাদে, সমাজে দূর্বিনীত বর্গীরাই এখন পরম অতিথি, এদের বিরুদ্ধে এবং পদলেহীদের দেশ নিলামের প্রতিবাদে, জমাট বাঁধা কান্নার পাহাড় থামাতে, বিভেদের বিভীষিকা দূরীভুত করতে, চোখ বাঁধা মানুষের দীর্ঘ সারি প্রসারিত করতে না দিয়ে শেখ হাসিনার পদত্যাগসহ অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন নিশ্চিত করতে, আপোষহীন দেশ নেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে প্রেরণ এবং বিএনপি মহাসচিবসহ সকল নেতাকর্মীর মুক্তির দাবিতে এই হরতাল কর্মসূচি সফল করতে সকলে এগিয়ে আসুন।

নির্বাচন কমিশন ঘোষিত তফসিলে মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিন বৃহস্পতিবার বিএনপিসহ সমমনা জোটগুলো সারাদেশে সকাল-সন্ধ্যা হরতালের ডাক দেয়। একই দাবিতে বুধবার ভোর ৬টা থেকে থেকে এদিনের যে অবরোধ কর্মসূচির শেষ হওয়ার পরপরই হরতালের কর্মসূচি শুরু হবে।

‘সমর্থন করো নইলে চুপ থাকো’

রিজভী বলেন, দেশে চলছে বিএনপি নেতাকর্মীদের বাড়িতে বাড়িতে মাতম আর মর্সিয়া। কান্না-আহজারির প্রতিদিনের ঘটনার বর্ণনা দীর্ঘ থেকে দীর্ঘতর হচ্ছে। বিএনপির নেতা-কর্মীরা এক কঠিন সময় পার করছ। অনেকটা দেশ ছাড়া উদ্বাস্তুর মতো সহায় সম্বলহীন নিঃস্ব তারা। বিএনপির নেতাকর্মীদের যেন মানবাধিকার থাকতে নেই। সংবিধানে যতটুকু মানবাধিকার আছে সেই অধিকার প্রয়োগেরও অধিকার নেই তাদের। হত্যা, লুন্ঠন ও বন্দী হওয়াই যেন তাদের ভাগ্যের লিখন।

রাষ্ট্র বলতেই এখন শুধুমাত্র শেখ হাসিনা আর আওয়ামী লীগের। শেখ হাসিনার নীতিই যেন- হয় আমাকে সমর্থন করো না হলে নিশ্চুপ থাকো। আওয়ামী শাসকগোষ্ঠীর উগ্র প্রচারের বিরুদ্ধে টু-শব্দ করতে পারবে না। লুন্ঠন আর হত্যা যেন কোন অমানবিক কাজ নয় ক্ষমতাসীনদের কাছে। শেখ হাসিনা লেলিয়ে দিয়েছেন তার পেটোয়া বাহিনীকে যারা মনে করে লুটপাট, সহিংসতা ও হত্যা যেন তাদের দলীয় কর্তব্য। যুবলীগ, ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা যে সহিংস আক্রমণের দৃষ্টান্ত দেখিয়ে আসছে সেকারণেই তাদেরকে ধনসম্পত্তি আর লুটপাটের সুযোগ করে দেয়াটা যেন প্রত্যক্ষ পারিতোষিক। অনাচার আর অপকর্মের সর্বোচ্চসীমা স্পর্শ করেছে আওয়ামী নাৎসীরা। তার (শেখ হাসিনা) তর্কাতীত ক্ষমতা ভোগ করার মনোভাব থেকে জন্ম নিয়েছে দুঃশাসনের বর্বর উপাদান।

গতকাল মঙ্গলবার হাতিরঝিলে বাসা থেকে বের হওয়ার পর ছাত্র দলের সাবেক সভাপতি ফজলুর রহমান খোকনের ওপর ছাত্রলীগের সন্ত্রাসীরা হামলা এবং পুলিশের গ্রেপ্তারের ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানান বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব।

রিজভী জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় সারাদেশে ৩শ ৬৫ জনের অধিক নেতা-কর্মী গ্রেপ্তার এবং ১৪টি মামলায় ১ হাজার ৫৩০ জনের অধিক নেতা-কর্মীকে আসামী করা হয়েছে।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়