গায়কোয়াড়ের সেঞ্চুরিতে ভারতের বিশাল সংগ্রহ

আগের সংবাদ

উড়ল সবুজ জ্বালানি চালিত প্রথম ফ্লাইট

পরের সংবাদ

মানুষের অন্ত্রে জীবন্ত মাছি!

প্রকাশিত: নভেম্বর ২৮, ২০২৩ , ৯:৩৮ অপরাহ্ণ আপডেট: নভেম্বর ২৮, ২০২৩ , ৯:৩৮ অপরাহ্ণ

এক ব্যক্তি (৬৩) স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য ডাক্তারের কাছে গেলে তার রোগের লক্ষণ শোনার পর চিকিৎসকের মনে হলো ওই ব্যক্তির কোলন ক্যান্সার হতে পারে। এটি নিশ্চিত হওয়ার জন্য কোলনোস্কোপি করা হয়েছিল। ক্যামেরাটি অন্ত্রের (ট্রান্সভার্স কোলন) কিছুদূর যাওয়ার পরে, ডাক্তাররা যা দেখলেন তা দেখে রীতিমতো অবাক হয়ে যান। সেখানে একটি অক্ষত জীবন্ত মাছি বসে আছে।

যুক্তরাষ্ট্রের মিসৌরি রাজ্যে এ বছর ঘটনাটি ঘটেছে। আমেরিকান জার্নাল অফ গ্যাস্ট্রোএন্টারোলজিতে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদনে, ইউনিভার্সিটি অফ মিসৌরি স্কুল অফ মেডিসিনের ডাক্তাররা জানান যে কোলনোস্কোপির সময় পাওয়া তথ্য বিরল। কিভাবে একটি জীবন্ত মাছি ট্রান্সভার্স কোলনে উড়ে যায় এটি একটি রহস্য।

ওই রোগী বলেন, কীভাবে মাছি তার শরীরে ঢুকল, সে সম্পর্কে তার কোনো ধারণা নেই। তার কোনো উপসর্গ ছিল না। ওই রোগী আরো বলেন, কোলনোস্কপির জন্য তাকে খালি পেটে যেতে বলা হয়েছিল। তিনি আগের দিন শুধু তরল খাবার খেয়েছিলেন। একদিন না খেয়ে থাকা শুরুর আগের সন্ধ্যায় তিনি পিৎজা ও লেটুস পাতা খেয়েছিলেন। তবে সেই খাবারে মাছি ছিল কি না তার মনে পড়ছে না।

উল্লেখ্য, মানুষের অন্ত্রে মাছি এবং মাছির লার্ভা পাওয়া যাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। তবে এটি বিরল। কখনো কখনো মানুষ মাছির ডিম এবং লার্ভাযুক্ত খাবার খেতে পারে। সেই ডিম বা লার্ভা পাকস্থলীর অ্যাসিডে বেঁচেও থাকতে পারে। আর বেঁচে থাকলে তা শরীরের অভ্যন্তরে বড় হতে পারে। এর আগেও পচেঁ যাওয়া কলায় মাছির ডিম পাওয়ার ঘটনা ঘটেছে।

সিডিসি (সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশন) অনুসারে, কিছু রোগীর পেটে এইভাবে মাছি ঢুকলেও তাদের কোনো উপসর্গ থাকে না। তবে অনেকের পেটে ব্যথা, বমি ও ডায়রিয়া হয়। এপ্রিল থেকে সেপ্টেম্বরের মধ্যে গরমকাল থাকে তাই মাছিও বেশি দেখা যায়।

এআই

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়