কুয়াকাটায় গঙ্গাস্নান ও রাসপুর্নিমা উৎসব অনুষ্ঠিত

কুয়াকাটায় গঙ্গাস্নান ও রাসপুর্নিমা উৎসব অনুষ্ঠিত

আগের সংবাদ

বিসিবি থেকে বিদায় নিচ্ছেন পাপন

পরের সংবাদ

ফেসবুকে প্রেমের ফাঁদে ফেলা প্রতারক গ্রেপ্তার (ভিডিও)

প্রকাশিত: নভেম্বর ২৭, ২০২৩ , ৩:০৩ অপরাহ্ণ আপডেট: নভেম্বর ২৭, ২০২৩ , ৩:০৩ অপরাহ্ণ

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক মেসেঞ্জারে ভয়ংকর এক রোমান্স স্ক্যামারকে গ্রেপ্তার করেছে সিটিটিসি সাইবার ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন বিভাগ। গ্রেপ্তারকৃতের নাম বেনজির হোসেন (৪০)। নড়াইলের আড়পাড়া মির্জাপুরের মো: জামির হোসেনের ছেলে সে। সোমবার (২৭ নভেম্বর) ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে সিটিটিসির পক্ষ থেকে এ তথ্য জানানো হয়।

সংবাদ সম্মেলনে সিটিটিসি ইউনিটের প্রধান পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার মো. আসাদুজ্জামান বলেন, ফেসবুকে ভুয়া জৌলুসপূর্ণ প্রোফাইল তৈরি করে এই প্রতারক নিঃসঙ্গ নারী ভিক্টিমদের টার্গেট করে প্রথমে প্রেমের ফাঁদ, পরে বিয়ের প্রলোভন ও স্বপরিবারে আমেরিকায় নিয়ে যাওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে বিপুল পরিমাণ অর্থ আত্মসাৎ করে এসেছে বছরের পর বছর। নেটফ্লিক্সের টিন্ডার সুইন্ডলার ডকুমেন্টারি ড্রামার মতই অভিনব এই প্রতারকের প্রতারণার ধরণ। প্রথমে বিশ্বাস তৈরি করে সেই বিশ্বাসের সুযোগ নিয়ে লাখ লাখটাকা এমনকি কোটি টাকা পর্যন্ত হাতিয়ে নেয়ার ঘটনা ঘটিয়েছে এই প্রতারক। সে পুলিশ পরিচয়ে প্রতারণা, রোমান্স স্ক্যাম, ইন্স্যুরেন্স স্ক্যাম, সেনাবাহিনী ও পুলিশে চাকরির স্ক্যাম, হুন্ডি ব্যবসা, মানবপাচার সহ নানা ধরণের প্রতারণামূলক অপরাধ কর্মের সঙ্গে জড়িত।

মো. আসাদুজ্জামান বলেন, গ্রেপ্তারকৃত প্রতারক বেনজির হোসেন শাহিদ হাসান নামে আমেরিকা প্রবাসী এক বাংলাদেশি বিমান চালকের প্রোফাইল হুবহু কপি করে শাহিদ হাসান (পাইলট অফিসার) নামে একটি ফেইক ফেসবুক প্রোফাইল তৈরি করে। ফেসবুক প্রোফাইলটিকে বিশ্বাসযোগ্য করার জন্য সে নিয়মিত প্রকৃত শাহিদ হাসানের ফেসবুক প্রোফাইল থেকে বিমান চালানোর ছবি ও ভিডিও পোস্ট করতো। প্রতারক বেনজির হোসেন ফেসবুকের বিভিন্ন গ্রুপ এবং পেইজে নিঃসঙ্গ নারী ভিক্টিমদের টার্গেট করে ফেসবুক মেসেঞ্জারে যোগাযোগ করে প্রথমে প্রেমের ফাঁদ, পরে বিয়ের প্রলোভন ও স্বপরিবারে আমেরিকায় নিয়ে যাওয়ার স্বপ্ন দেখাতো। সে অডিও কলে ভিক্টিমদের সঙ্গে কথা বললেও কখনোই ভিডিও কলে নানান অজুহাতে কথা বলতো না। এরপর অনলাইন প্রণয়ের এক পর্যায়ে সে বিভিন্ন সময় বিপদে পরার কথা বলে তার দেয়া বিভিন্ন নগদ নম্বরে (প্রতারণার কাজে ব্যবহার করা ১৯ টি নগদ নম্বরের বিষয়ে জানা গিয়েছে) ধাপে ধাপে লক্ষ লক্ষ টাকা নিয়ে আত্মসাৎ করেছে। প্রতারক বেনজির হোসেন এর প্রতারণার কাজে ব্যবহৃত ১৩টি নগদ নম্বরে গত ৪ মাসে ১ কোটি টাকারও বেশি লেনদেনের তথ্য পাওয়া যায়।

তিনি বলেন, প্রতারক বেনজির হোসেন নড়াইল জেলায় নিজের বাড়িতে থেকে প্রতারণার কাজ করলেও ক্যাশ আউট করতো তার বাড়ি থেকে ৫০ কিলোমিটার দূরে যশোর ও খুলনা জেলায় বিভিন্ন নগদ ক্যাশ আউট পয়েন্টে। তার প্রতারণার কাজে ব্যবহৃত সিম এবং নগদ নম্বরের রেজিস্ট্রেশনে ব্যবহৃত এনআইডি অন্য ব্যক্তির নামে। ক্যাশ আউট করার সময় প্রতারক বেনজির হোসেন পরিচয় ও চেহারা গোপন করার জন্য ক্যাপ, সানগ্লাস ও মুখে মাস্ক পড়ে থাকতো। এমনই একজন ভিক্টিম – স্বপ্না (ছদ্মনাম) একজন সিঙ্গেল মাদার। প্রতারক বেনজির হোসেন এর প্রতারণার স্বীকার হয়ে গত সাত মাসে বিভিন্ন নগদ নাম্বারে প্রতি মাসে ১৪/১৫ লাখ করে টাকা দিয়ে প্রায় এক কোটি টাকা খুইয়েছেন। একই সময়ে অপর একজন ভিক্টিম জান্নাত (ছদ্মনাম) প্রতারক বেনজির এর কাছে খুইয়েছেন প্রায় ১৫ লাখ টাকা। প্রতারক বেনজির হোসেন এর স্মার্ট ফোনে ৫০ এরও অধিক ভিক্টিম এর সন্ধান পাওয়া যায়।

ছবি: ভোরের কাগজ

স্বপ্না এবং জান্নাত এক সপ্তাহের মধ্যে ভিন্ন ভিন্ন সময়ে অভিযোগ নিয়ে সিটি সাইবার ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন ডিভিশনে প্রতিকারের জন্য আসলে সাইবার টেরোরিজম ইনভেস্টিগেশন টিম তাদের মামলা করার পরামর্শ দেয় এবং ছায়া তদন্ত শুরু করে। ভিক্টিম স্বপ্না রাজধানীর ওয়ারী থানায় প্রতারণার বিষয়ে গেল ২১ নভেম্বর মামলা দায়ের করেন। পরবর্তীতে ২২ নভেম্বর ২০২৩ তারিখে ছায়া তদন্তে নেমে বিশদ প্রযুক্তিগত অ্যানালাইসিস এর মাধ্যমে আসামি প্রতারক বেনজির হোসেনকে শনাক্ত করে খুলনার ফুলতলায় প্রতারণার কাজে ব্যবহৃত নগদ নম্বর থেকে ক্যাশ আউটের সময় সন্ধ্যায় হাতেনাতে গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তারের সময় প্রতারক বেনজির হোসেন এর কাছ থেকে শাহিদ হাসান (পাইলট অফিসার) নামে একটি ফেইক ফেসবুক অ্যাকাউন্ট লগড-ইন অবস্থায় একটি স্মার্ট ফোন এবং ক্যাশ আউটের কাজে ব্যবহৃত একটি বাটন ফোন, ৪ টি নগদ অ্যাকাউন্ট সম্বলিত সিম জব্দ করা হয়। জব্দকৃত স্মার্ট ফোনে ৫০ এরও অধিক ভিক্টিম এর সন্ধান পাওয়া যায়। গ্রেপ্তারকৃত প্রতারক বেনজির হোসেনকে বিজ্ঞ আদালতে প্রেরণ করে রিমান্ডের আবেদন করা হয়েছে বলে জানান সিটিটিসি ইউনিটের প্রধান।

এআই

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়