ডিএমআরএফ’র সভাপতি ইমু, সম্পাদক রানা

আগের সংবাদ

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে আবারো খুন

পরের সংবাদ

ব্লু- ইকোনোমি গবেষণা কেন্দ্র হচ্ছে কক্সবাজারে

প্রকাশিত: নভেম্বর ২৫, ২০২৩ , ৫:৪৮ অপরাহ্ণ আপডেট: নভেম্বর ২৫, ২০২৩ , ৫:৪৮ অপরাহ্ণ

কক্সবাজার জেলার টেকনাফ উপজেলার সমুদ্রতট সংলগ্ন শীলখালি এলাকায় সাত একর জায়গায় ‘বঙ্গবন্ধু ব্লু-ইকোনোমি গবেষণা কেন্দ্র’ স্থাপিত হতে যাচ্ছে। শুক্রবার চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) উপাচার্য ড. শিরীন আখতার বিশ্ববিদ্যালয়ের সংশ্লিষ্ট শিক্ষক কর্মকর্তাদের নিয়ে এই গবেষণাকেন্দ্রের সীমানাপ্রাচীর নির্মাণ কাজের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেন।

এর আগে চবি সমুদ্রবিজ্ঞান ইনস্টিটিউট এর শিক্ষক-গবেষক ও শিক্ষার্থীদের গবেষণার জন্য ‘বঙ্গবন্ধু ব্লু-ইকোনোমি গবেষণা কেন্দ্র’ এর জন্য কক্সবাজারে সরকারের সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় সাত একর ভূমি বরাদ্দ দেয়। সীমানা প্রাচীর নির্মাণ কাজের উদ্বোধন উপলক্ষে সেখানে (টেকনাফের শীলখালি) এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন চবি উপাচার্য প্রফেসর ড. শিরীণ আখতার।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন চবি উপ-উপাচার্য (একাডেমিক) প্রফেসর বেনু কুমার দে। চবি রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) কে এম নুর আহমদ এর সভাপতিত্বে এবং চবি এস্টেট শাখার প্রশাসক ড. মোহাম্মদ মঈনুল ইসলামের সঞ্চালনায় আলোচনা অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন চবি পরিকল্পনা ও উন্নয়ন দপ্তরের পরিচালক (ভারপ্রাপ্ত) মো. আলতাফ-উল-আলম এবং শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন সহকারী প্রক্টর অরূপ বড়ুয়া। এছাড়া প্রফেসর ড. সুলতান আহমেদ, প্রফেসর ড. মোহাম্মদ নাসিম হাসান, ডিন প্রফেসর ড. মো. শফিকুল ইসলাম এবং স্থানীয় ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. আমজাদ হোসেন প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। অনুষ্ঠানে চবি’ র বিভিন্ন অনুষদের শিক্ষক, কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

উপাচার্য বলেন, এ গবেষণা কেন্দ্রটি নির্মিত হলে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের এবং দেশের সুনীল অর্থনীতি গবেষণায় সম্ভাবনার নতুন দুয়ার উন্মোচিত হবে। এতে একদিকে সমুদ্র বিজ্ঞানের শিক্ষক-গবেষক এবং শিক্ষার্থীরা যেমন উপকৃত হবেন তেমনি তাদের গবেষণার মাধ্যমে দেশ-জাতিও উপকৃত হবে।

চবি’র জন্য কক্সবাজার এ জায়গা বরাদ্দ দেয়ায় চবি উপাচার্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাভেদসহ সংশ্লিষ্টদের প্রতি আন্তরিক কৃতজ্ঞতা জানান।

তিনি বলেন, ‘আমরা এখন শুধু স্বপ্ন দেখিনা, স্বপ্ন বাস্তবে রূপ দিতে জানি।’ এ ভূমিতে অনেক কিছুই করা যাবে। বহুল প্রত্যাশিত একটি স্বপ্ন আজ বাস্তবে রূপ লাভ করছে।

পরে উপাচার্য সীমানা প্রাচীর নির্মাণের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়