রাজধানীর সঙ্গে চট্টগ্রাম ও সিলেটের ট্রেন চলাচল বন্ধ

আগের সংবাদ

তৈরি পোশাক খাতে সংকটের ধ্বনি : রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা জরুরি

পরের সংবাদ

অনুপমের ছবির ফ্রেমজুড়ে কবিতা

প্রকাশিত: নভেম্বর ১৭, ২০২৩ , ১০:৪৩ অপরাহ্ণ আপডেট: নভেম্বর ১৭, ২০২৩ , ১০:৪৩ অপরাহ্ণ

কবিতা লেখেন। কবিতায় তিনি তার ভাব প্রকাশ করেন। সেই ভাব পাঠকের কাছে পৌঁছায় রসের অভিজ্ঞতা নিয়ে। কিন্তু অনুপম তো কবি নন। ছবিই আঁকেন। মূলত কবিতাকে তিনি রূপান্তর করেন ছবিতে। অনুপমের আঁকা ছবি হয়ে যায় কাব্য। কাব্যরস জাগরিক হয় চিত্রশিল্পে। অন্যের মনে সঞ্চারিত হয় কাব্যরসের সঙ্গে মিলেমিশে যাওয়া নান্দনিক শিল্পরস। প্রদর্শনী ঘুরে এমন দৃশ্যেরই দেখা মিলল। যেন একেকটি ফ্রেমজুড়ে আছে একেকটি কবিতা!

শুক্রবার সন্ধ্যায় আঁলিয়াস ফ্রঁসেজ দ্য ঢাকার লা গ্যালারিতে শুরু হলো চিত্রশিল্পী রেজা আসাদ আল হুদা অনুপমের ‘কাব্যচিত্র বা পোয়েট্রিমেজ’ শীর্ষক দ্বিতীয় একক চিত্র প্রদর্শনীটি। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে প্রদর্শনীটির উদ্বোধন করলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইমেরিটাস অধ্যাপক বিশিষ্ট শিল্পী হাশেম খান। বিশেষ অতিথি ছিলেন বিশিষ্ট চিত্রশিল্পী অধ্যাপক মোস্তাফিজুল হক।

বক্তারা বলেন, অনুপমের আঁকা ছবি তার লেখা কবিতার ভাষার মতো সরল। ভঙ্গি অতিনমনীয়। সেখানে প্রেম আছে, আছে দ্রোহ। তবে চিৎকার নেই, শান্ত ও নির্লিপ্ত। চেনা জানা বিষয়বস্তু বলেই বিমূর্ত ছবির অনুভূতি অমনি চেনা বোধ হয়, অতি চেনা। মনে হয় এ যেন নিজের কথা, নিজের ভাবনা। বাস্তব আর কল্পনা মিশে যায় এক রেখায়। ছবিতে লেখা কথাগুলো হৃদয়ের নিঃশ^াসের দূরত্বে দাঁড়িয়ে থাকে।

অনুপম হুদা তার পেইটিংয়ে বাস্তবধর্মী অনুকরণের পথে যাননি। তিনি শিল্পের সন্ধান করেছেন। ছবিতে হুবহু বাস্তবের অনুকৃতি দেখে সৌন্দর্য ও আনন্দেও অনুভব জাগতে পাওে বটে, তবে অনুপম খুঁজেছেন তা থেকে অধিক কিছু, অন্য ধরনের কম্পোজিশন। অনুপম ছবি এঁকেছেন বিমূর্ত ফর্মে যার ভেতর আছে রূপান্তর ও পরিবর্তন, দূরত্ব। অনুপম হুদার আঁকা ছবি টোন, লাইন, কালার, টেকচার, কম্পোজিশন, ফর্ম সব মিলিয়ে ক্যানভাসে তাই গভীর শিল্প হয়ে ওঠে।

প্রদর্শনীতে দেখা গেল শিল্পীর ক্যানভাসে রঙের বিভিন্ন গঠন ও বুননের মাধ্যমে একটি আলাদা বিন্যাস তৈরি করেছে। সেই বিন্যাসের ওপরে রং আর ফর্মের এক অদ্ভুত কম্পোজিশন। এসব ছবি মূলত বিমূর্ত। এই বিমূর্ত ছবির ভেতরেও ক্যানভাসে শিল্পী খানিক মূর্ত অবয়ব নিয়ে এসেছেন। যা এসেছে প্রতিকীরূপে। যেমন নিসর্গের মাঝে নৌকা, কোনোটিতে এসেছে কবুতর, চড়ুই, শালিক। আবার সন্ধ্যার প্রেম, দুপুরের একাকিত্ব বোঝাতে রঙের নানা রূপ টেক্সচার, ফর্ম, লাইন ব্যকহার করেছেন। আবার দেখা যায় নারী অবয়ব। তবে অনুপম হুদার এই প্রদর্শনীর সবগুলো ছবিতেই মূর্ত ও বিমূর্তের এক অদ্ভুত সমন্বয় খুঁজে পাওয়া গেল। বলা যায় যা একেবারে নতুন, যা তার নিজস্ব ভঙ্গি।

প্রদর্শনীতে ছোট বড় মিলিয়ে মোট ২৬টি চিত্রকর্ম স্থান পায়। সবগুলো ছবি ক্যানভাসের ওপরে অ্যাক্রেলিক রঙে আঁকা
প্রদর্শনী চলবে ২৮ নভেম্বর পর্যন্ত। সোম থেকে শনিবার বিকাল ৩টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত খোলা থাকবে। রোববার সাপ্তাহিক বন্ধ। প্রদর্শনীর দরজা সবার জন্য খোলা।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়