সংসদে ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প কর্পোরেশন বিল পাস

আগের সংবাদ

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার আঞ্চলিক পরিচালক পদে সায়মা ওয়াজেদকে মনোনয়ন

পরের সংবাদ

চালু হলো ৫ বছর মেয়াদী ট্রেড লাইসেন্স

প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ৫, ২০২৩ , ১:০৫ পূর্বাহ্ণ আপডেট: সেপ্টেম্বর ৫, ২০২৩ , ১:০৫ পূর্বাহ্ণ

পাঁচ বছর মেয়াদি ট্রেড লাইসেন্স ইস্যু ও নবায়ন কার্যক্রমের উদ্বোধন করেছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র ব্যারিস্টার ফজলে নূর তাপস। তিনি বলেন, প্রতিবছর ব্যবসায়ীরা ট্রেড লাইসেন্স নবায়ন করতে হয়রানির শিকার হতেন। নতুন এ কার্যক্রমের ফলে আর হয়রানির সুযোগ নেই, সব হবে অনলাইনে। কারো দপ্তরে আর দ্বারস্থ হতে হবে না।

সোমবার (৪ সেপ্টেম্বর) মেট্রোপলিটন চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিতে (এমসিসিআই) এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে ট্রেড লাইসেন্স ইস্যু ও নবায়ন কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন তিনি।

মেয়র ফজলে নূর তাপস বলেন, বর্তমানে ট্রেড লাইসেন্স সংক্রান্ত সব কাজ অনলাইন মাধ্যমে হবে। একজন ব্যবসায়ী মাত্র ১০ মিনিটের মধ্যে ট্রেড লাইসেন্স নবায়ন করতে পারবেন। আমরা বলতে পারি এ দিকে আমরা এখন আন্তর্জাতিক মানে পৌঁছে গেছি। ব্যবসায়ীদের হয়রানি বন্ধে ট্রেড লাইসেন্স ৫ বছরের জন্য দেওয়া হবে। দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের আওতাভুক্ত ও বিডার আওতায় যেসব ব্যবসায়ী কাজ করবেন সবাই এর সুফল পাবেন।

তিনি বলেন, আমাদের আইন করার সময় ট্রেড লাইসেন্স নাবায়ন ও ইস্যুর ক্ষেত্রে ৫ বছরের মেয়াদ দেয়ার বিষয়টি উল্লেখ ছিলো। যারা এই আইন করেছেন তারা অত্যন্ত মেধাবী ও দুরদর্শী ছিলেন। কিন্তু যারা দায়িত্বে ছিলেন তাদের অবহেলার কারণেই এই আইন বাস্তবায়ন হয়নি। এমসিসিআই থেকে প্রস্তাব দেওয়ার পর আইন বিশ্লেষণ করতে গিয়ে আমি এই বিষয়টি দেখতে পাই। পরে আলোচনার মাধ্যমে ৫ বছর মেয়াদী লাইসেন্স নাবায়ন ও ইস্যুর সিদ্ধান্ত হয়।

তাপস বলেন, পুরান ঢাকা এবং ডিএসসিসির আওতাধীন অন্যান্য এলাকাকে পর্যটক এবং ব্যবসা উভয়ের জন্য আকর্ষণীয় গন্তব্যে পরিণত করাই আমাদের লক্ষ্য। এজন্য আমরা কাজ করছি। পুরান ঢাকায় রাসায়নিক গোডাউনের কারণে বারবার দুর্ঘটনা হচ্ছিলো। এজন্য আমরা ওইসব ব্যবসায়ীদের লাইসেন্স দেওয়া বন্ধ করেছি। এখন আমরা রাসায়নিক গোডাউনের ব্যবস্থা করেছি, যারা সরকার নির্ধারিত জায়গায় রাসায়নিক গোডাউন ও কারখানা স্থানান্তর করবেন তাদের জন্য ট্রেড লাইসেন্স ব্যবস্থা করে দেয়া হবে।

তিনি আরও বলেন, আমাদের অবকাঠামোগত উন্নয়নের পাশাপাশি প্রযুক্তিগত উন্নয়নেও মনোযোগ দিতে হবে। এজন্য আমরা ট্রেড লাইসেন্স ইস্যু ও নবায়নের জন্য অনলাইনের ব্যবস্থা করেছি। কারও ট্রেড লাইসেন্সের মেয়াদ উর্ত্তীন্ন হয়ে গেলে তিনি যদি ব্যাংকে যান এবং ব্যাংক থেকে ট্রেড লাইসেন্স নবায়নের শর্ত দেওয়া হয় তিনি ১০ মিনিটের মধ্যেই তা নাবায়ন করে নিতে পারবেন। এজন্য তাকে বিভিন্ন অফিসে দৌড়াদৌড়ি করতে হবে না।

মেয়র বলেন, আমরা রাজধানীর ঐতিহ্যবাহী এলাকাগুলোকে তার ঐতিহ্য ফিরিয়ে দিতে চাই। আগে রাজধানীর মতিঝিল ছিলো বাণিজ্যের কেন্দ্র ভূমি। এই এলাকাকে সেই পরিকল্পনা থেকে প্রস্তুত করা হয়েছিলো। কিন্তু বিভিন্ন কারণে এই এলাকা তার ঐতিহ্য হারিয়েছে। মেট্রোরেল চালু হওয়ার পর সেটিকে আবারও সক্রিয় করা হবে। পাশাপাশি চকবাজারকেও তার ঐতিহ্যে ফিরিয়ে নেওয়া হবে। এ ক্ষেত্রে ওই এলাকায় যান্ত্রিক যানবাহন চলাচলে নিরুৎসাহিত করা হবে।

তিনি বলেন, ঢাকা শহরের ব্যবসায়ীদের নেতৃত্ব দিচ্ছে এমসিসিআই। মোট অভ্যন্তরীণ পণ্য উৎপাদনের ৪০ শতাংশ হয় ঢাকায়। অবকাঠামো উন্নয়নে হার্ড ও সফট উন্নয়ন হয়। মেট্রোরেল ও এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে হওয়ার পর মানুষ আজ হার্ড অবকাঠামো উন্নয়নের সুফল পাচ্ছি। এর সঙ্গে সফট বিশেষ করে ডিজিটালি টিকেটিং ব্যবস্থা যোগ হওয়ায় ভোগান্তি নেই। ব্যবসায়ীরাও এর সুফল পাচ্ছেন। আগে ট্রেড লাইসেন্স নবায়ন ও ব্যবসা কার্যক্রম পরিচালনা করতে গিয়ে ব্যবসায়ীরা হয়রানির মুখে পড়তো। এতে ব্যবসায়িক উন্নয়নে প্রতিবন্ধকতা তৈরি হয়েছিল। এখন আর কোনো হয়রানির মধ্যে পড়তে হবে না, কারো দপ্তরে দিনের পর দিন ঘুরতে হবে না।

এমসিসিআই সভাপতি সাইফুল ইসলাম বলেন, আমাদের দেশের হতদরিদ্রসীমা ৫ শতাংশের নিচে নেমেছে। এ ছাড়া মাথাপিছু আয় ৩ হাজার ডলার ছুঁই ছুঁই। এর ফলে, বিদেশি বিনিয়োগকরীরা এখন আগ্রহ দেখায়। আগে ট্রেড লাইসেন্স ছিল স্বল্পমেয়াদের জন্য, বছরে, বছরে নবায়ন করতে হতো। এতে প্রতিবছর ব্যবসায়ীদের হয়রানির মধ্যে পড়তে হতো। এমসিসিআইর পক্ষে আমরা পলিসি মেকারদের ও সরকার প্রধানকে জানিয়েছিলাম। এ বিষয়ে দ্রুত পদক্ষেপ নিয়েছেন তারা, যার ফলশ্রুতিতে আজকে ট্রেড লাইসেন্সের মেয়াদ ৫ বছর করা হলো।

তিনি আরও বলেন, ২০২২ সালের ১১ আগস্ট এখানে মেয়র এসেছিলেন। তখন আমরা ট্রেড লাইসেন্স ৫ বছর করার কথা বলেছিলাম। তখন তিনি বলেছিলেন, এটা খুবই জটিল কাজ। কারণ এটা রাজস্ব, এনবিআর ও স্থানীয় সরকারের ওপর নির্ভরশীল। তারপরেও অনেক কষ্ট করে মেয়র শত বাধা উপেক্ষা করে মেয়াদ ৫ বছর করে দিলেন।

এমকে

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়