চাকরি স্থায়ী না হলে আমরণ অনশনের হুমকি জবি কর্মচারীদের

চাকরি স্থায়ী না হলে আমরণ অনশনের হুমকি জবি কর্মচারীদের

আগের সংবাদ

কক্সবাজার পর্যটন হাব, সুন্দরবনে লাইট হাউজ করার সুপারিশ

পরের সংবাদ

সড়কে অবৈধ যানবাহন বন্ধের দাবি জাতীয় কমিটির

প্রকাশিত: জুলাই ২৬, ২০২৩ , ৪:৫৯ অপরাহ্ণ আপডেট: জুলাই ২৬, ২০২৩ , ৪:৫৯ অপরাহ্ণ
সড়কে অবৈধ যানবাহন বন্ধের দাবি জাতীয় কমিটির

সড়ক দুর্ঘটনা ও প্রাণহানি রোধে ত্রুটিপূর্ণ ও রুট পারমিটবিহীন বাসসহ সব ধরনের অবৈধ যানবাহন এবং লাইসেন্সবিহীন চালকের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনার দাবি জানিয়েছে নৌ, সড়ক ও রেলপথ রক্ষা জাতীয় কমিটি।

এজন্য রাজধানী ঢাকাসহ দেশের সব মহাসড়ক, আন্ত:জেলা সড়ক ও আঞ্চলিক সড়কে অবিলম্বে ভ্রাম্যমাণ আদালতের কার্যক্রম শুরুর আহ্বান জানিয়েছে সংগঠনটি। কমিটি বলেছে, যে কেউ একটি মোটর বসিয়ে অটো রিকসা বানিয়ে মহাসড়ক, বা ভিতরের রাস্তায় চালাচ্ছে । এসব ড্রাইভারদের কোন লাইসেন্স নেই। তাছাড়া অনেক লক্কর-ঝক্কর যার বাহন ফিটনেসবহীন, এসব চালকদের অধিকাংশেরই লাইসেন্স নেই। এসব কারণে প্রচুর পরিমাণ দুর্ঘটনা হয়।

বুধবার (২৬ জুলাই) এক বিবৃতিতে সংগঠনের সভাপতি হাজি মোহাম্মদ শহীদ মিয়া ও সাধারণ সম্পাদক আশীষ কুমার দে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয় এবং বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষসহ (বিআরটিএ) সংশ্লিষ্ট সকল মহলের প্রতি এই আহবান জানান।

অবৈধ যানবাহন এবং লাইসেন্সবিহীন ও অপ্রাপ্তবয়স্ক চালকসহ আইন ভঙ্গকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ভূমিকা পালনের জন্য বিআরটিএ, পুলিশ, হাইওয়ে পুলিশ ও জেলা প্রশাসনের প্রতিও আহ্বান জানানো হয় বিবৃতিতে।

দেশের বিভিন্ন স্থানে নিয়মিত সড়ক দুর্ঘটনা ও ধারাবাহিক হতাহতের ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে বিবৃতিতে বলা হয়, সড়ক-মহাসড়কে অহরহ দুর্ঘটনা ও অনাকাঙ্খিত মৃত্যু ঘটলেও দুর্ঘটনার ঝুঁকিমুক্ত সড়ক প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট সকল মহল উদাসীন রয়েছে।

বিবৃতিতে জাতীয় কমিটির নেতারা বলেন, নিকট অতীতে বিভিন্ন সময়ে সড়ক পরিবহনমন্ত্রীসহ সরকারের দায়িত্বশীল কর্মকর্তারা দুর্ঘটনার জন্য ত্রুটিপূর্ণ ও অবৈধ যানবাহন এবং অদক্ষ ও লাইসেন্সবিহীন চালকদের দায়ী করেছেন। অথচ সংশ্লিষ্ট সরকারি সংস্থাগুলো এসব অনিয়ম ও অব্যবস্থাপনার বিরুদ্ধে কার্যকর কোনো পদক্ষেপ নিচ্ছে না। এর ফলে দৃশ্যত সড়ক ও মহাসড়গুলো মৃত্যুফঁদে পরিণত হয়েছে।

গত শনিবার (২২ জুলাই) ঝালকাঠিতে ১৭ জনের প্রাণহানির মতো দুর্ঘটনায় পুনরাবৃত্তি যেন না ঘটে, সে ব্যাপারেও সড়ক পরিবহন মন্ত্রণালয় ও বিআরটিএকে সতর্ক করেন বিবৃতিদাতারা।

এসএম

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়