বাউফলে দুই শিক্ষার্থী খুন: গ্রেপ্তার হয়নি কেউ

আগের সংবাদ

কেন্দুয়ায় গাছের সঙ্গে ধাক্কায় পিকআপ ভ্যান চালক নিহত

পরের সংবাদ

শ্যামনগরে টর্নেডোর আঘাতে ৪৫ ঘর-বাড়ি বিধ্বস্ত

প্রকাশিত: মার্চ ২৩, ২০২৩ , ৪:৪৩ অপরাহ্ণ আপডেট: মার্চ ২৩, ২০২৩ , ৭:৩৯ অপরাহ্ণ

সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলার উপকূলীয় রমজাননগর ও কৈখালী ইউনিয়নে টর্নেডোর আঘাতে কাঁচা পাকা শতাধিক ঘর বাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছ। ৬ নম্বর রমজাননগর ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের কালিঞ্চি গ্রামের খাস খামার, মধ্যপাড়া, গেট পাড়া, কলোনিপাড়া সহ কৈখালী ইউনিয়নের কয়েকটি পাড়ায় উপর দিয়ে প্রচন্ড গতিতে টর্নেডো আঘাত হেনেছে। এতে বেশ কয়েকটি ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত হয়েছে। এছাড়া কালিন্দী নদীতে এক জেলে নিখোঁজ রয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২৩ মার্চ) ১১টায় দিকে টর্নেডো আঘাত হানে। নিখোঁজ জেলে কৈখালী ইউনিয়নের ফরেষ্ট অফিস সংলগ্ন রমজান আলীর ছেলে রুহুল কুদ্দুস (৪৫)।

রমজাননগর ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, আমার ইউনিয়নে প্রায় ১৪/১৫ বসত বাড়ি, দোকান ঘর ভেঙে গিয়েছে এবং ৩০ টার মতো ঘরবাড়ি ক্ষতি হয়েছে তার মধ্যে ইউপি সদস্য আলী আজগর বুলু, মোস্তাফিজুর পিতা মজিবর গজীসহ ৪৫টির বেশি ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত হয়। ইউপি সদস্য আলী আজগর বুলু বলেন দুই মিনিটের মধ্যেই কি একটা হয়ে গেছে। দেখেন অধিকাংশ ঘরের চালনেই উড়ে গেছে।

ছবি: মেহেদী হাসান মারুফ, শ্যামনগর (সাতক্ষীরা)

কৈখালী ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রহিম বলেন, পূর্ব কৈখালী‌ গ্রামের বিশে গাজী পিতা সুলতান গাজী, সাদূর বরকনদাজ‌ পিতা আহাম্মেদ বরকনদাজ‌, শাহিন মোল্লা পিতা মুনছুর মোল্লা, সলেমান মোল্লা পিতা দেলোয়ার মোল্লা, আব্দুলা গাজী পিতা নওশের গাজী, সিদ্দিক গাজী পিতা মৃত্যু নূর আলী গাজী আফসার গাজী পিতা মৃত্যু মোজাহার গাজীসহ আমার হাতে আসা তথ্য অনুযায়ী টর্নেডোর হানায় ২০টির মতো ঘড় সম্পূর্ণ ভেঙে গেছে এবং ৩০/৪০ টির অধিক ঘর আংশিক ক্ষতি হয়েছে। এছাড়াও নদীতে মাছ ধরাকালীন একজন জেলে নিখোঁজ হয়েছে তার খোঁজ এখনো পাওয়া যায়নি।

নিখোঁজ জেলের সঙ্গী আব্দুল রশিদ জানান, আমরা কালিন্দী নদীতে মাছ ধরছিলাম ওপারে ভারত এপার কৈখালী ৫ নদীর মোহনা ১১টার দিকে হঠাত করে ঝড় ওঠে কোন কিছু বুঝে ওঠার আগেই আমাদের ৫টি নৌকা পানিতে ডুবে যায়। পরে ভারতীয় বিএসএফ সদস্যরা দ্রুত স্পিডবোট এনে আমাদেরকে উদ্ধার করে, আমাদের বর্ডার গার্ড বিজিবিরাও তাৎক্ষণিকভাবে উপস্থিত হন তাদের কাছে আমাদেরকে উঠায় দেয়। আমাদেরকে হস্তান্তর করে। নৌ পুলিশ ও কোচ গার্ডের সদস্যরা তাৎক্ষণিকভাবে সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে যান, নৌ পুলিশ কোস্টগার্ড ও ফাস্ট সার্ভিসের সদস্যরা নিখোঁজ রুহুল কুদ্দুসকে উদ্ধারের চেষ্টা চালাচ্ছে।

শ্যামনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আক্তার হোসেন জানান, ইতিমধ্যে টর্নেডোর আঘাতে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে আমাদের ইউপি চেয়ারম্যানদের মাধ্যমে শুকনো খাবার চিড়া, মুড়ি, বিস্কিট পর্যাপ্ত পরিমাণ পাঠানো হয়েছে। এবং ১ মেট্রিক টন চাউল প্রস্তুত করা হয়েছে তাদের কাছে দ্রুত পৌঁছে দেওয়া হবে।

নিখোঁজ রুহুল কুদ্দুসকে খোঁজার জন্য কোস্টগার্ড, ফায়ার সার্ভিস, ডুবুরি দল চারিদিকে তল্লাশি চালাচ্ছে এখনো পর্যন্ত কোনো খবর পাওয়া যায়নি।

ছবি: মেহেদী হাসান মারুফ, শ্যামনগর (সাতক্ষীরা)

কেএইচ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়