ভিকি-ক্যাটরিনার বিয়ে শেষ হলেও এখন আলোচনায় কেক

আগের সংবাদ

নিম্ন আয়ের ২৫ গ্রাহককে সেরা সন্মাননা স্মারক দিল ঢাকা ওয়াসা

পরের সংবাদ

যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞার প্রতিবেদন পেলে অবস্থান‌ জানাবো: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রকাশিত: ডিসেম্বর ১১, ২০২১ , ১২:৫৩ অপরাহ্ণ আপডেট: ডিসেম্বর ১১, ২০২১ , ১:৫৪ অপরাহ্ণ

সদ্য বাংলাদেশ পুলিশ প্রধানসহ র‌্যাবের শীর্ষ ছয় কর্মকর্তার যুক্তরাষ্ট্র প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা নিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, কি কারণে তারা এই নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে সেই প্রতিদেবন আমার টেবিলে এখনও আসেনি। প্রতিবেদন পেলে আমরা আমাদের অবস্থান জানাবো। তবে আমাদের সিস্টেম কিন্তু অনেক সুন্দর। এখানে কেউ ইচ্ছা করলেই ক্রসফায়ার বা গুলি করতে পারে না।

শনিবার (১১ ডিসেম্বর) রাজধানীর ওয়াসা ভবনে এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এ কথা বলেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমেরিকা যে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে। সেই প্রতিবেদনটা আমার টেবিলে এখনও আসেনি। সেটা আমাকে দেখতে হবে তারা কেন কিভাবে, কি কারণে এই নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে। সেটা না দেখে পুরা মন্তব্য করতে পারব না।

তিনি বলেন, আমি যতটুকু শুনেছি, এই নিষেধাজ্ঞা যে কারণে দিয়েছে। সেই কারণগুলো আমাদের দেশে যতবারই ঘটেছে সবগুলোর একটা জুডিশিয়াল তদন্ত হয়। একজন ম্যাজিস্ট্রেট সেটি চেক করেন, যে অ্যাকসিডেন্ট হল এই অ্যাকসিডেন্টের পেছনে কারণগুলো যথাযথ ছিল নাকি গাফিলতি ছিল। আমরা যেখানে কোনো গাফিলতি পাই সেখানে কিন্তু তার বিরুদ্ধে মামলা চালু হয়ে থাকে। গাফিলতি না থাকলে সেখানেই ক্লোজড হয়ে যায়।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমাদের সিস্টেম কিন্তু সুন্দর সিস্টেম। এই সিস্টেমে কেউ ইচ্ছা করে ক্রসফায়ার বা ইচ্ছা করে গুলি করতে পারে না। সেসব ঘটনার পেছনে যথাযথ কারণ ছিল বলে আমার কাছে প্রতীয়মান হয়েছে। এসব ঘটনা শুধু আমাদের দেশে না, পৃথিবীর সব দেশে এইগুলো চলছে এবং এগুলো চালু আছে।

এ সময় তিনি সাংবাদিকদের উদ্দেশে বলেন, একটি ঘটনা নিশ্চয়ই দেখেছেন, কুমিল্লায় প্রকাশ্যে আট-নয় জন সন্ত্রাসী যেভাবে বন্দুক উঁচু করে গুলি করছিল। এদের কাছে যদি নিরাপত্তা বাহিনী গিয়ে বলে আপনারা আসেন? এরা কি আসবে? এরা আবার চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দেয়। সেরকমই একটা ঘটনা কুমিল্লায়ও ঘটেছিল। সন্ত্রাসীরা যখন আগ্নেয় অস্ত্র তাক করেন, তখন আমাদের নিরাপত্তা বাহিনী তাদের নিরাপত্তা ও জানমালের ক্ষয়ক্ষতি থেকে সুরক্ষার জন্য অনেক সময় গুলি করেন। সেটা তার জন্য বৈধ ছিল, যুক্তি সঙ্গত ছিল, নাকি যুক্তি সঙ্গত ছিল না সেটা কিন্তু তদন্ত হচ্ছে।

যুক্তরাষ্ট্রেও এধরণের ঘটনা ঘটে তাহলে কেন এই নিষেধাজ্ঞা সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমি যখন প্রতিমন্ত্রী ছিলাম, তখন ২০১৪ সালে একটা ঘটনা ঘটেছিল। তখন যুক্তরাষ্ট্রেও একটি ছেলে ছাদের ওপর তার পকেট থেকে একটি টিস্যু বের করার জন্য তার পকেটে হাত দিচ্ছিল তখনই তাকে গুলি করে মেরে ফেলছে। এ ধরনের ঘটনা তো ওই দেশে ঘটেছে। কাজেই অনেক ঘটনা। উদাহরণ দিলে অনেক ঘটনা দেওয়া যায়। আগে কেন দিয়েছে আমরা সেটা দেখব, দেখে আনুষ্ঠানিকভাবে জানাব। আগে দেখেনিই কেন করেছেন, কি উদ্দেশ্যে করেছেন, আমরা সেগুলো দেখেই নিশ্চই এটা সমন্ধে কিছু বলব।

আর- কেকে / ডি- এইচএ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়